ভিটামিন ডি বেশি খেলে কি হয় | Vitamin D Over Dose – 2023

ভিটামিন ডি বেশি খেলে কি হয়

ভিটামিন ডি বেশি খেলে কি হয়, কিংবা ভিটামিন ডি বেশি খাওয়ার কারণে কী ঘটে? এ নিয়েই থাকছে বিস্তারিত আলোচনা। 

ভিটামিন ডি বেশি খেলে কি হয়

 

ভিটামিন ডি শরীরের সুস্থতার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি উপাদান। এটি সাধারণত দৈনন্দিন খাবার থেকে আসে। তাই সঠিক সময়ে সঠিক খাবার খাওয়া জরুরী। 

কিন্তু অতিরিক্ত ভিটামিন ডি খাওয়ার ফলে,  নানান সমস্যা তৈরি হতে পারে। এই আর্টিকেল পড়ে আপনি জানতে পারবেন ভিটামিন ডি বেশি খেলে কি হয়।  ভিটামিন ডি বেশি খাওয়ার কারণে কী ঘটে। এবং কী উপায়ে এই সমস্যা সমাধান করা যায়।

 

ভিটামিন ডি বেশি খেলে কি হয়?

অতিরিক্ত ভিটামিন ডি খাওয়ার ফলে শরীরে বিভিন্ন সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে। অতিরিক্ত ভিটামিন ডি এর প্রভাবে যে সকল সমস্যা হতে পারে, তার গুরুত্বপূর্ণ অংশগুলো নিম্নে আলোচনা করা হয়েছে। 

 

ভিটামিন ডি স্বাস্থ্যের গুরুত্ব

ভিটামিন ডি স্বাস্থ্যকে বৃদ্ধি করে। এবং সঠিক ভাবে কাজ করে। যেন হাড়-মাংসপেশী নির্মাণ করা, এবং সঠিক ক্যালসিয়ামের স্তর বজায় রাখা যায়।

 বিশেষ করে এটি শক্তিশালী হাড় এবং দাঁত নির্মাণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তাছাড়া ভিটামিন ডি ক্যালসিয়ামের স্তর নিয়ন্ত্রণ করে। এবং অসুখে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে।

 

 ক্যালসিয়াম ওভারডোজ

ভিটামিন ডি অতিরিক্ত খাওয়ার ফলে, শরীরের ক্যালসিয়াম এর মাত্রা উচ্চ হয়ে যেতে পারে। যাকে ক্যালসিয়াম ওভারডোজ বলা হয়। 

এটি ক্যালসিয়াম স্টোন এবং অন্যান্য অসুখের ঝুঁকি বৃদ্ধি করতে পারে। তাই শরীরে সঠিক ভাবে ক্যালসিয়াম পরিচালনা করতে হলে, অবশ্যই নির্দিষ্ট মাত্রা বজায় রেখে ভিটামিন ডি খাওয়া উচিৎ।

 

অতিরিক্ত তাপমাত্রা বৃদ্ধি:

অতিরিক্ত ভিটামিন ডি শরীরের তাপমাত্রা বাড়াতে পারে। যা আপনার শরীরকে গ্রীষ্মকালীন গরমের সৃষ্টি করতে পারে।

 

ক্যান্সারের ঝুঁকি:

 এক গবেষণায় দেখা গেছে,  অতিরিক্ত Vitamin D side effects (ভিটামিন ডি সাইড ইফেক্ট) খুবই বিপদজনক।  

 যা আপানকে মরনব্যধী ক্যান্সারের দিকে ঠেলে দিতে পারে। 

তাই ক্যান্সারের ঝুঁকি এরাতে অতিরিক্ত ভিটামিন ডি জাতীয় খাবার এবং ভিটামি ডি সাপ্লিমেন্ট সেবন করা থেকে বিরত থাকাটাই বুদ্ধিমান এর কাজ।

 

সমাধান এবং উপায়:

অতিরিক্ত ভিটামিন ডি খেয়ে সমস্যায় পরার আগেই চিকিৎসকের সঠিক পরামর্শ এবং উপযুক্ত উপায়ে এটির পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা উচিত।

 

ডাক্তারের পরামর্শ:

 যদি আপনি ভিটামিন ডি সাপ্লিমেন্ট গ্রহণ করতে চান। তাহলে প্রথমেই ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করা উচিত। আপনার স্বাস্থ্য অবস্থা এবং প্রয়োজনীয়তা নির্ধারণ করার জন্য, উপযুক্ত ডাক্তার সেলেক্ট করে সাহায্য করতে পারেন।

 

স্বাস্থ্যকর খাবার:

 ভিটামিন ডি যে খাবারে পাওয়া যায়, সেগুলি স্বাস্থ্যকর খাবারের মধ্যে যোগ করা উচিত। মাছ, ডেয়রি প্রোডাক্টস, গরুর দুধ, মুসুর ডাল, সূর্যমুখি তেল ইত্যাদি ভিটামিন ডি এর উত্তম উৎস।

 

সূর্যের আলো:

সূর্যের আলো ভিটামিন ডি এর একটি মৌলিক উৎস। প্রতিদিন সূর্যের আলোতে সময় কাটানো সুস্থ্য এবং স্বাস্থ্যের উন্নতি করতে পারে।

 

ভিটামিন ডি ওভারডোজের লক্ষণ

আপনি ভিটামিন ডি ওভারডোজ খাওয়ার কারনে যে লক্ষণ গুলো দেখতে পাবেন। তার মধ্যে প্রধান লক্ষণগুলো নিচে দেয়া হলো।

ভিটামিন ডি ওভারডোজের লক্ষণ

 

অত্যধিক ক্ষুধা:

ভিটামিন ডি ওভারডোজে ফলে হাড় এবং মাংসপেশীগুলির অত্যন্ত ক্ষুধা সৃষ্টি করতে পারে। আপনি একবার পেটপুরে খাওয়ার কিছুক্ষণ পরেই আবার ক্ষুধা লেগে যাবে। 

চোখে শুধু নূর দেখতে পাবেন। মানে শরীরে কম্পন তৈরি হবে। হাত পা কাপতে থাকবে। 

 

অক্ষমতা এবং অস্থিরতা:

vitamin d over dose (অতিরিক্ত ভিটামিন ডি) সেবন করার কারনে। আপনার অক্ষমতা এবং অস্থিরতা দেখা দিতে পারে। কোন বল শক্তি পাবেন না। শরীর এমন মাত্রায় গরম হবে। মনেহবে পানিতে নেমে দাঁড়িয়ে থাকি। 

 

পায়খানা:

অতিরিক্ত ভিটামিন ডি সেবনের ফলে পায়খানি হতে পারে। বারবার বাতরুমের যাবেন আর আসবেন। মনে হবে ক্রিকেট খেলার উইকেট পরতেছে।

 

অতিরিক্ত গ্যাস এবং মসৃণতা: 

আপনার দেহে অতিরিক্ত ভিটামিন ডি উপস্থিত থাকলে।  ডাইজেস্টিভ সিস্টেমে সমস্যা হতে পারে। যার প্রভাবে পেটে অতিরিক্ত গ্যাসের সৃষ্টি হতে পারে।  সেই সাথে চামড়া খসখসা বা অমসৃনতার লক্ষণ হতে পারে।

 

চেহারার আদ্রতা কমে যাওয়া:

ভিটামিন ডি অতিরিক্ত সেবনের ফলে চেহারার মধ্যে আর্দ্রতা কমে যেতে পারে।

 

শরীরের দুর্বলতা:

 যখন আপনি ভিটামিন ডি অতিরিক্ত সেবন করে ফেলবেন।  তখন শরীরের দুর্বলতা দেখা দিতে পারে। যা দৈনিক কাজে অসুবিধা তৈরি করতে পারে। কাজ কর্মের প্রতি কোন মনোযোগ থাকবে না। নিজের শরীর নিজেই নিয়ে হাঁটাচলা করতে পারবেন না। নিজেকে বড় মাপের রোগি বলে মনে হবে।

এই লক্ষণগুলো মাত্র অতিরিক্ত ভিটামিন ডি খাওয়ার ফলেই হতে পারে। এবং এগুলি স্বাস্থ্য সমস্যার সাথে অন্যান্য সমস্যাও হতে পারে। তাই যদি আপনি এই লক্ষণগুলি অনুভব করেন। তাহলে দেরি না করে ডাক্তারের পরামর্শ নেয়াটাই জরুরী।

সঠিক নিয়মে ভিটামিন ডি সাপ্লিমেন্ট সেবন করা:

যদি আপনি ডাক্তারের পরামর্শে ভিটামিন ডি সাপ্লিমেন্ট গ্রহণ করে থাকেন। তাহলে সঠিক সময়ে ডোজ নিশ্চিত করে সেবন করুন।

সঠিক নিয়মে ভিটামিন ডি সাপ্লিমেন্ট সেবন করা

 

কারন, অনিয়মিত ভিটামিন ডি সাপ্লিমেন্ট সেবন করলে হিতে বিপরীত হতে পারে।

 

উপসংহার:

আমরা উপরের আলোচনা থেকে জানতে পারলাম যে, ভিটামিন ডি মানুষের শরীরের স্বাস্থ্য উন্নত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তবে,  ভিটামিন ডি বেশি খেলে নানান সমস্যা তৈরি করতে পারে। তাই আমরা নিশ্চিত হতে পারলাম যে সঠিক ডোজ এবং পরামর্শের সাথে ভিটামিন ডি সাপ্লিমেন্ট গ্রহণ করতে পারলে। আপনি স্বাস্থ্যকে উন্নত করতে পারেন এবং নানান সমস্যার ঝুঁকি কমাতে পারেন।

আমরা আশা করতেই পারি এই ব্লগটি আপনি মনযোগের সাথে সম্পূর্ণ করে থাকলে। তাহলে ভিটামিন ডি বেশি খেলে কি হয়? এই প্রশ্ন আর মাথায় ঘুরপাক করবে না।

যে কোন প্রয়োজনে আমাূের সাথে যোগাযোগ করতে এই লিংকে ক্লিক করুন।